কোন বড় সাইনিং নয়, প্রথা ভেঙে নতুন দিগন্তে রিয়াল

রিয়াল মাদ্রিদ নামের সাথে অন্যরকম একটা মিল আছে ট্রান্সফার বাজারের। কোন তারকা, তাকে যত টাকাই হৌক, নিয়ে আসতেই হবে। এটাই ছিল রিয়াল মাদ্রিদের সারমর্ম। ২০১৪ সালের বিশ্বকাপের পর হামেসকে চাই। শেষ পর্যন্ত মোনাকো থেকে হামেসকে কিনেই ছেড়েছিল তারা। বায়ার্নের টনিক্রুসকে চেয়েছিল। কিনেই ছেড়েছে। তবে এবার মনে হয় সেই পথ খেকে সরে আসছে রিয়াল মাদ্রিদ।

ট্রান্সফার বাজারে আলোড়ন তোলা রিয়াল মাদ্রিদ এবার প্রথমে নেইমারের পেছনে ছুটেছিল। এরপর নজর দিয়েছিল এমবাপ্পের উপর। এখন তাদের নজরে আছে হ্যাজার্ড।

তবে স্পানিশ মিডিয়ার খবর, হ্যাজার্ডকে রিয়াল মাদ্রিদ কিনতে চাইলেও বাড়তি দাম দিয়ে কিনবে না। অহেতুক টাকা আর খরচ করতে রাজি নয় রিয়াল। তার চেয়ে যারা বিশ্বসেরা হতে পারে তাদের নিয়েই ভবিষ্যত শক্ত করার চিন্তা করছে রিয়াল মাদ্রিদ কর্তারা।

রিয়াল মাদ্রিদের বিকল্প চিন্তা ভাবনার প্রকাশ এবার ট্রান্সফারের শুরু থেকেই। প্রথমে অ্যালিসনকে কিনতে চাইলেও তার দাম বেশি হওয়ায় এবং আরো কম দামে কর্তোয়াকে পাওয়ার সম্ভাবনা দেখা দেয়ায় অ্যালিসনের পথ থেকে সরে আসলো। কর্তোয়া এখনো রিয়াল মাদ্রিদে না আসলেও রিয়াল মাদ্রিদ কিন্তু আরেক প্রতিশ্রুতিশীল গোলকিপারকে ঠিকই কিনে নিয়েছে।

নেইমার, এমবাপ্পে, হ্যারি কেইন, লেভানদস্কি, ইকার্দিসহ অনেকের নামই শোনা গিয়েছিল। কিন্তু রিয়াল মাদ্রিদ তাদের কাউকেই এখনো কিনেনি। তবে রিয়াল মাদ্রিদ বসে থাকেনি। কিনেছে ভিনিসিয়াস জুনিয়র এবং রোদ্রিগো গোয়েসকে। এই্ দুইজনই ব্রাজিলের তরুন তারকাদের মধ্যে অন্যতম সেরা এবং ভবিষ্যতে ফুটবল বিশ্বের রাজত্ব করার যথেষ্ট সম্ভাবনা রয়েছে। আর সেই ভবিষ্যত শক্তিশালী করতেই তরুন দুই যুব তারকাকে কিনে নিল।

অন্যদিকে গোলকিপার হিসেবে অনেকের নামই তো আসলো। কিন্তু কিনে নিল লুনিনকে। ১৯ বছর বয়সী এই গোরকিপারের সম্ভাবনা রয়েছে তিন পায়ার নিচে রাজত্ব করার।

আর থেকেই রিয়াল মাদ্রিদের পরিকল্পনা পরিষ্কার হয়ে যায়। যতটা বাকি থাকে ততটাও পরিষ্কার হয়ে যায় রিয়াল সভাপতির কথায়। তিনি বলেছিলেন, আমরা এমন তরুন তারকাদের কিনতে চাই যারা ভবিষ্যতে সর্বোচ্চ সাফল্য এনে দিতে পারবে এবং তাতে আমাদের ভবিষ্যত শক্তিশালী হবে।

হিসাব পরিষ্কার। টাকা খরচ করে বড় তারকা না কিনে বড় তারকা আমরা নিজেরাই তৈরি করব। তরুন প্রতিভা এনে তাদের বিশ্বসেরা বানাব। সেই সাথে রিয়াল মাদ্রিদও চলতে থাকবে তার নিজস্ব গতিতে। আর এই নীতিতেই এখন কাজ করছে রিয়াল বোর্ড।

বিডি২৪রিপোর্ট/জুয়েল